সর্বশেষ সংবাদ :
শহিদ শেখ রাসেলের সমাধিতে কৃষি তথ্য সার্ভিসের শ্রদ্ধা নিবেদন সারের মজুত পর্যাপ্ত/ তদারকি জোরদার ও নিয়মিত মোবাইল কোর্ট পরিচালনার নির্দেশ- কৃষি সচিবের সারের হালনাগাদ তথ্য- মজুদ পর্যাপ্ত জাতীয় শোক দিবসের টুঙ্গিপাড়ার বঙ্গবন্ধুর সমাধি সৌধ, বঙ্গবন্ধু ডিপ্লোমা কৃষিবিদ পরিষদ এর পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা নিবেদন কৃষিতে বরিশালের মৃত গৌরব পুনর্জীবিত করা হবে ইনশাআল্লাহ- কৃষিমন্ত্রী ইউরিয়া সারের অপ্রয়োজনীয় ব্যবহার কমাতেই দাম বৃদ্ধি// সার নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ বিএনপির চরম নির্লজ্জতার প্রমাণ: কৃষিমন্ত্রী সারের দাম বৃদ্ধির ফলে উৎপাদনে প্রভাব পড়বে না// আন্তর্জাতিক বাজারে দাম কমলে দেশেও কমানো হবে: কৃষিমন্ত্রী ইউরিয়া সারের দাম পুননির্ধারণ: প্রতিকেজি ৬ টাকা বাড়ান হয়েছে বন্যার ক্ষতি পুষিয়ে নিতে কৃষকদের ১১ কোটি টাকার বীজ, সার সহায়তা দিয়েছে সরকার খাদ্যের জন্য কোনক্রমেই বিদেশের উপর নির্ভরশীল থাকা যাবে না: কৃষিমন্ত্রী
রংপুরে চাষ হচ্ছে ব্রি বঙ্গবন্ধু-১০০ ধান। উচ্চফলনশীল এ ধান আশা জাগিয়েছে কৃষকের মধ্যে।

ব্রি বঙ্গবন্ধু ১০০ ধান আশা জাগিয়েছে

  • রিপোটার
  • সময় : ০৪:০৭:২৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৯ মে ২০২২
  • ১৭০ জন দেখেছেন

রংপুরে চাষ হচ্ছে ব্রি বঙ্গবন্ধু-১০০ ধান। উচ্চফলনশীল এ ধান আশা জাগিয়েছে কৃষকের মধ্যে। জিঙ্কসমৃদ্ধ এ ধান কৃষকের মধ্যে ব্যাপক আকারে ছড়িয়ে দিতে পারলে দেশে ব্রি ধানের ক্ষেত্রে বৈপ্লবিক পরিবর্তন আসবে বলে মনে করছেন কৃষিসংশ্লিষ্টরা।

কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, জিঙ্কসমৃদ্ধ ব্রি বঙ্গবন্ধু-১০০ নতুন জাতের এ ধানটি আধুনিক উফশী ধানের মতো। এটি বোরো মৌসুমের জাত। পূর্ণবয়স্ক ধান গাছের উচ্চতা ১০১ সেন্টিমিটার। ১৪০-১৪৫ দিনের মাথায় এ ধান ঘরে তোলা যাবে। এ ধানে জিঙ্ক রয়েছে ২৫৭ মিলিগ্রাম। এটি দেখতে নাজিরশাইল বা জিরা ধানের দানার মতো। বঙ্গবন্ধু ব্রি-১০০ ধানের গড় ফলন হেক্টরপ্রতি সাড়ে ৬ থেকে ৭ মেট্রিক টন। চালের গড় ফলন সাড়ে ৪ থেকে ৫ মেট্রিক টন। তবে অনুকূল পরিবেশ ও উপযুক্ত পরিচর্যা পেলে হেক্টরপ্রতি এর ফলন বাড়তে পারে।রংপুর কৃষি অফিসের সূত্রমতে এ ধান এবারই রংপুরে প্রথম চাষ করা হয়েছে। জেলার আট উপজেলায় প্রায় ৬০ বিঘা অর্থাৎ ৮ হেক্টর জমিতে এ ধানের আবাদ হয়েছে। বর্তমানে এ ধানের বয়স ১২০-১২৫ দিন। আর সপ্তাহ দুয়েক পর এ ধান কাটা-মাড়াই শুরু হবে। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর খামারবাড়ি ঢাকার অতিরিক্ত উপপরিচালক আবু সায়েম বলেন, ‘জিঙ্কের অভাবে মানুষ পুষ্টিহীনতায় ভোগে। আমাদের দেশে অধিকাংশ নারী ও শিশু জিঙ্কের অভাবে বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। এ ধান মানুষের দেহে রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে দেবে। বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউটের (বিআরআরআই) বিজ্ঞানীরা এ জাতের ধান উদ্ভাবন করেছেন। এর সুফল কৃষকের কাছে যত দ্রুত পৌঁছে দেওয়া যাবে ততই দেশের মঙ্গল হবে।’

রংপুর সদরের উপসহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা পরিমল সরকার, কৃষক আবদুর রশিদ ও শাহ আলম জানান, ডিসেম্বরে এ নতুন জাতের ধানের বীজ বপন করা হয়েছে। এখন ধান কাটার সময়। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি ফলনের সম্ভাবনা রয়েছে।

রংপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপপরিচালক ওবায়দুর রহমান মণ্ডল বলেন, ‘জেলায় প্রায় ৬০ বিঘা জমিতে প্লট আকারে এ ধান পরীক্ষামূলকভাবে চাষ করা হয়েছে। কৃষকের জমিতে এ ধান আবাদ করা হলেও সার্বিক দেখাশোনা করেছে কৃষি বিভাগ। আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে এ ধান কৃষক ঘরে তুলতে পারবেন।’ আগামীতে এ ধান দেশের খাদ্য উৎপাদনের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

সুত্র: ব্রি বঙ্গবন্ধু ১০০ ধান আশা জাগিয়েছে | ২৭ মে, ২০২২ (bd-pratidin.com)

Tag :

আপনার মুল্যবান কমেন্ট লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ইমেইল সংরক্ষণ করুন এবং অন্যান্য তথ্য দিন

জনপ্রিয় পোস্ট

শহিদ শেখ রাসেলের সমাধিতে কৃষি তথ্য সার্ভিসের শ্রদ্ধা নিবেদন

রংপুরে চাষ হচ্ছে ব্রি বঙ্গবন্ধু-১০০ ধান। উচ্চফলনশীল এ ধান আশা জাগিয়েছে কৃষকের মধ্যে।

ব্রি বঙ্গবন্ধু ১০০ ধান আশা জাগিয়েছে

সময় : ০৪:০৭:২৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৯ মে ২০২২

রংপুরে চাষ হচ্ছে ব্রি বঙ্গবন্ধু-১০০ ধান। উচ্চফলনশীল এ ধান আশা জাগিয়েছে কৃষকের মধ্যে। জিঙ্কসমৃদ্ধ এ ধান কৃষকের মধ্যে ব্যাপক আকারে ছড়িয়ে দিতে পারলে দেশে ব্রি ধানের ক্ষেত্রে বৈপ্লবিক পরিবর্তন আসবে বলে মনে করছেন কৃষিসংশ্লিষ্টরা।

কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, জিঙ্কসমৃদ্ধ ব্রি বঙ্গবন্ধু-১০০ নতুন জাতের এ ধানটি আধুনিক উফশী ধানের মতো। এটি বোরো মৌসুমের জাত। পূর্ণবয়স্ক ধান গাছের উচ্চতা ১০১ সেন্টিমিটার। ১৪০-১৪৫ দিনের মাথায় এ ধান ঘরে তোলা যাবে। এ ধানে জিঙ্ক রয়েছে ২৫৭ মিলিগ্রাম। এটি দেখতে নাজিরশাইল বা জিরা ধানের দানার মতো। বঙ্গবন্ধু ব্রি-১০০ ধানের গড় ফলন হেক্টরপ্রতি সাড়ে ৬ থেকে ৭ মেট্রিক টন। চালের গড় ফলন সাড়ে ৪ থেকে ৫ মেট্রিক টন। তবে অনুকূল পরিবেশ ও উপযুক্ত পরিচর্যা পেলে হেক্টরপ্রতি এর ফলন বাড়তে পারে।রংপুর কৃষি অফিসের সূত্রমতে এ ধান এবারই রংপুরে প্রথম চাষ করা হয়েছে। জেলার আট উপজেলায় প্রায় ৬০ বিঘা অর্থাৎ ৮ হেক্টর জমিতে এ ধানের আবাদ হয়েছে। বর্তমানে এ ধানের বয়স ১২০-১২৫ দিন। আর সপ্তাহ দুয়েক পর এ ধান কাটা-মাড়াই শুরু হবে। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর খামারবাড়ি ঢাকার অতিরিক্ত উপপরিচালক আবু সায়েম বলেন, ‘জিঙ্কের অভাবে মানুষ পুষ্টিহীনতায় ভোগে। আমাদের দেশে অধিকাংশ নারী ও শিশু জিঙ্কের অভাবে বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। এ ধান মানুষের দেহে রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে দেবে। বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউটের (বিআরআরআই) বিজ্ঞানীরা এ জাতের ধান উদ্ভাবন করেছেন। এর সুফল কৃষকের কাছে যত দ্রুত পৌঁছে দেওয়া যাবে ততই দেশের মঙ্গল হবে।’

রংপুর সদরের উপসহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা পরিমল সরকার, কৃষক আবদুর রশিদ ও শাহ আলম জানান, ডিসেম্বরে এ নতুন জাতের ধানের বীজ বপন করা হয়েছে। এখন ধান কাটার সময়। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি ফলনের সম্ভাবনা রয়েছে।

রংপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপপরিচালক ওবায়দুর রহমান মণ্ডল বলেন, ‘জেলায় প্রায় ৬০ বিঘা জমিতে প্লট আকারে এ ধান পরীক্ষামূলকভাবে চাষ করা হয়েছে। কৃষকের জমিতে এ ধান আবাদ করা হলেও সার্বিক দেখাশোনা করেছে কৃষি বিভাগ। আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে এ ধান কৃষক ঘরে তুলতে পারবেন।’ আগামীতে এ ধান দেশের খাদ্য উৎপাদনের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

সুত্র: ব্রি বঙ্গবন্ধু ১০০ ধান আশা জাগিয়েছে | ২৭ মে, ২০২২ (bd-pratidin.com)